কবিতা & গল্প

Hadiuzzaman Hridoy 8 months ago ভিউ:305

নিজের বলার মত একটি গল্প,,


আসসালামু আলাইকুম ,

ছোট বেলা থেকেই আনন্দ উল্লাসে সময় কাটা মানুষ আমি। 


সাল টা ছিলো ২০১৩ তখন আমার বেস্ট ফ্রেন্ড,কাছের একজন মানুষকে হারাই ফেলি। ওনি আমার নানু। আল্লাহ ওনাকে আমার কাছে থেকে নিয়ে গেছেন। সেদিন থেকে বড্ড একলা মনে হয়। 
আমার মা থেকেও বেশি আমি ওনাকে ভালোবাসতাম,গুরুত্ব দিতাম, স্কুল পালিয়ে নির্ভয়ে থাকতাম,,
মা যখন মারতে ধরবে নানু বাচিয়ে নিবে?
তো ওনাকে হারালাম। জেএসসি পরীক্ষা ছিলো তখন আমার। জেএসসি পরীক্ষা দিছি আর কান্না করছি। 
সময় টা ভুলার নয় কখনো।
??জিবনে দুঃখের শেষ নেই। প্রত্যেকটা মানুষের জিবনেই দুঃখ আছে। সে জন্যই সুখগুলোর এত্ত দাম। 
কেউ প্রকৃত সুখি নন, সবাই কোনো না কোনো দিক দিয়ে অসুখী।
টেনশন এমন একটা জিনিস যেটা প্রত্যেক টা মানুষের আছে। এমন একটা মানুষ বলতে পারবে না যে তার কোনো টেনশন নেই।
একটা বাবার টেনশন তার মেয়ে বড় হইছে মেয়েকে বিয়ে দিতে হবে, ছেলে বড় হইছে ছেলেকে একটা কাজ ধরাই দিতে হবে। 
কোনো বাবার সন্তান এখনো ছোট তার টেনশন ছেলে মেয়েদের কিভাবে বড় করবে। সন্তানদের চাহিদা পূরন ইত্যাদি ইত্যাদি।
 বড় ভাইয়ের টেনশন বোনকে বিয়ে দিতে হবে, চাকরি করতে হবে, কিছু একটা করতে হবে। 
একজন ধনী মানুষের টেনশন তার এত এত টাকা কিভাবে সেইফ রাখবে। কখন কি কাজে লাগাবে ইত্যাদি ইত্যাদি। 
গরিব মানুষের টেনশন তারা গরিব রাত পুহালেই কিস্তি নামক যন্ত্রনা, ছেলে মেয়েদের বড় করা,মানুষের মত মানুষ করা, আজকে কামাই না করতে পারলে ঘরে খাবার থাকবে না এই শুধু টেনশন আর টেনশন। 
কি বুঝলাম...  
টেনশন নামক শব্দ টা আমাদের প্রত্যেকের জিবনে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।
বাঁচতে হলে খেতে হবে, খেতে হলে রান্না করতে হবে, রান্না করতে হলে যাবতীয় জিনিস লাগবে সেগুলা না থাকলে ঘরের মধ্যে মহিলাদের টেনশন। 
আহারে টেনশন শুধুই টেনশন। 
??বড় হইছি, এখন বুঝি, বাস্তবতা চিনেছি। 
ছোটবেলায় না বুঝেই এক এক বড় আবদার করে বসে থাকতাম। বাবা তো গরিব। মুখের ওপরেই বারন করে দিলে পারতো। কিন্ত না কখনোই এই কাজ টা করেন নাই। যেটা চাই সেটাই এনে দিয়েছে। প্রত্যেকটা চাহিদা তিনি পূরন করেছেন। 
অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন যেটা পৃথিবীর কোনো কিছুর মূল্যেও পরিশোধ হবার নয়। 
তখন তো আমাদের অবলা মন ছিলো, ছোট মন ছিলো, আবদার করার মন ছিলো, চাহিদা করার মন ছিলো। তখন এই বাস্তবতার চোখ টা ছিলো না, বাবার কষ্ট বুঝার চোখ টা ছিলো না। 
এখন হারে হারে টের পাই। আগের কথা মনে হলে চোখ দিয়ে অঝোরে পানি ঝরতে থাকে। 
আফসোস হয় ইশ! আমি যদি এই এই আবদার গুলা না করতাম, ইশ! আমি যদি এই এত্ত বড় চাহিদা টা করে বসে না থাকতাম। বাবা টার কষ্ট টা যদি অই সময়ে বুঝতাম।
কি করার? কিছু করার আছে? 
না কিছুই করার নেই সময় টা চলে গেছে। 
এখন আমাদের করনীয় কি?
বাবা মা' কে বিদ্যাশ্রমে পাঠাই দেওয়া? 
অনাদরে ফালাই রাখা? 
অযত্নে রাখা?
না এই কথা মাথাতেও আনা যাবে না পাপ বড় পাপ হবে৷ 
এই আমার বাবার মত আপনাদের বাবারাও কিন্ত সেইম কাজটা করেছে। 
ছোট ছিলেন বুঝেন নাই, টের পান নাই। 
নিজে নিজে বড় হই নাই আমরা কেউ। বাবা মায়ের 
অক্লান্ত পরিশ্রমের বিনিময়ে আমরা আজ প্রত্যেকের বেড়ে উঠা। আজকের এই আমি/ আপনি গড়ে উঠেছি তাদের জন্যই কিন্ত।
তাদের নিজেদের কথা কিন্ত কখনোই ভাবে নাই সবসময় আমাদের কথা ভেবে এসেছেন। 
সু-শিক্ষায় বড় করেছেন। আমার মা বাবা কিন্ত শিক্ষিত নন। 
কিন্ত আমি মনে করি ওনাদের যতটুকু জ্ঞান, আজ অবধি আমরা কেউ তা অর্জন করতে পেরেছি বলে 
আর কখনো পারবোও না।
জীবনের প্রতিটা সিড়িতে পা ফেলতে হাত ধরেছিলো এই মা আর বাবাই কিন্ত। 
আমরা কি পারি না এই মা বাবাকে জিবনের শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ অবধি দায়িত্ব পালন করতে, সেবা যত্ন করতে। আর এইটা কি বেশি করা হয়ে যাবে? অবশ্যই না।
প্রিয় স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞ তিনি এত বিশাল ভালো মানুষের পরিবার উপহার দিয়েছেন। দিয়েছেন তার অক্লান্ত পরিশ্রম আমাদের পিছনে। 
তিনি একদিন একটা সেশনে বলেছিলেন। 
আজকেই মা বাবা কে বলে দিতে আমি আপনাদের অনেক ভালোবাসি। 
এটা তাদের জন্য বেস্ট পাওয়া হবে বিশ্বাস করেন। ওনারা অনেক খুশি হবেন। 
প্রিয় স্যার আপনার প্রতি দিন দিন শ্রদ্ধা বেরেই চলেছে। একদিন আমরা এই ভালোমানুষের পরিবার অনেক অনেক বড় হবো ইনশাআল্লাহ। 

গল্পটি ভালো লাগলে কমেন্টস করবেন এবং শেয়ার করবেন ধন্যবাদ। এরকম আরো গল্প জানতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন।

কমেন্ট


Logo

Hadiuzzaman Hridoy 7 months ago

cxvxcv

Logo

Hadiuzzaman Hridoy 7 months ago

xcvxcvx

Logo

Hadiuzzaman Hridoy 7 months ago

In an instagram post in November, Hufnagel shared a shot of himself with his son, as the pair hold hands and skateboard together down an empty road.

Logo

Farzana sharmin 4 months ago

Nice

সাম্প্রতিক পোস্ট