অজানা রহস্য

Fahmida jui 3 months ago ভিউ:197

সাবমেরিন ক্যাবলঃ


সাবমেরিন ক্যাবলঃ ইন্টারনেট ব্যাকবোনের মূল ভিত্তি


================================
ইন্টারনেট ছাড়া বর্তমান বিশ্ব যেমন স্থবির হয়ে পড়বে, তেমনি সাবমেরিন ক্যাবল ছাড়া স্থবির হয়ে পড়বে বৈশ্বিক ইন্টারনেট ব্যবস্থা। মোট ইন্টারনেট ট্রাফিকের ৯৯ শতাংশই নির্ভরশীল সাবমেরিন ক্যাবলের ওপর। কী এই সাবমেরিন ক্যাবল ?
.       
সহজ কথায় বলা যেতে পারে যে , সাবমেরিন ক্যাবল হলো সমুদ্রের তলদেশ দিয়ে যাওয়া অসংখ্য পুরু তার। যেগুলো একাধিক দেশ থেকে শুরু করে যুক্ত করেছে প্রায় সবগুলো মহাদেশকে।
.
বিশ্বের প্রায় ১২ লক্ষ কিলোমিটার জুড়ে ছড়িয়ে আছে ৪০৬ টিরও বেশি সাবমেরিন ক্যাবল! একেকটি ক্যাবল ২০ থেকে ২৫ বছর পর্যন্ত অক্ষত থাকতে পারে।
.
সমুদ্রের তলদেশে প্রচন্ড চাপ সহ্য করে টিকে থাকতে হয় এই ক্যাবলগুলোকে; সেই সাথে সামুদ্রিক প্রাণী, প্রাকৃতিক দুর্যোগ আর জাহাজের নোঙরের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা তো থাকেই। 
.
এজন্যই একটি ক্যাবলের ভেতরে থাকে ৮টি স্তর; যার মধ্যে ৭টিই নিরাপত্তা স্তর হিসেবে কাজ করে। একদম ভেতরের স্তরটিই অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে তথ্য আদান-প্রদানের মূল কাজটি করে থাকে।
.
সাবমেরিন ক্যাবল সমুদ্রের তলদেশে স্থাপনের কাজ করে বিশেষ ধরনের কিছু জাহাজ। 
.
সবচেয়ে চমকপ্রদ ব্যাপারটা হলো, বিশ্বের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবলটি স্থাপন করা হয়েছিল ১৮৫৮ সালে!
.
যুক্তরাষ্ট্র আর গ্রেট ব্রিটেনকে যুক্ত করা সেই ক্যাবলটির নাম 'ট্রান্স-আটলান্টিক ক্যাবল'।
.
টেলিগ্রাফের সংকেত আদান-প্রদানের মাধ্যমে এই ক্যাবল পাল্টে দিয়েছিল যোগাযোগ ব্যবস্থার খোলনলচে! কালক্রমে এই সাবমেরিন ক্যাবলই হয়ে উঠেছে ইন্ট


কমেন্ট


সাম্প্রতিক পোস্ট