ভ্রমণ

Tahmid Iqbal 4 months ago ভিউ:327

অস্ট্রেলিয়ার সিডনির দর্শনীয় স্থান।


সিডনি (Sydney) অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় শহর যেখানে প্রায় ৫০ লাখ লোকের বাস। গ্লোবালাইজেশনের যুগে এসে জীবন ও জীবিকার খোঁজে নানা ঐতিহ্যের নানা দেশের মানুষ ঠাই নিয়েছে সিডনী শহরে।


তাই এখানে আস্তে আস্তে গড়ে উঠছে নানা জাতির মিশেলে এক অন্যরকম পর্যটন এর সমাহার। তাই যখন সিডনিতে থাকবার, ঘুরে বেড়াবার বা খাবার জায়গা খোঁজা হয় তখন এই শহরটি অনেক অনেক সুযোগ নিয়ে তার পর্যটকদের আমন্ত্রণ জানায় সোৎসাহে।



সিডনির দর্শনীয় স্থান
সিডনি শহরে দেখার মত আছে অনেক দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা। আপনার হাতের সময় ও আপনার আগ্রহ অনুযায়ী ঘুরে দেখতে পারেন বিভিন্ন জায়গা। উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান গুলোর মধ্যে রয়েছে –



সিডনি অপেরা হাউস (Opera House) :


অস্ট্রেলিয়া (Australia) বলতেই চোখের সামনে ভেসে উঠে পাল তোলা নৌকার মতো এক দালানের ছবি যা অপেরা হাউস নামে পরিচিত। এই আইকনিক বিল্ডিং ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ এর একটি এবং প্রতিদিন হাজার হাজার লোক সমাগম হয় এখানে। অপেরা হাউসের সবচেয়ে ভাল ভিউ পেতে হলে কাছেই মিসেস ম্যাকাউরে’স চেয়ার নামের উঁচু জায়গায় যাওয়া আবশ্যক। অপেরা হাউসের কাছাকাছি রয়েছে অনেকগুলো ঘুরবার স্থান। 



সিডনি হারবার ব্রিজ (Sydney Harbour Bridge) :


অপেরা হাউসের পরেই সিডনির বিখ্যাত হারবার ব্রিজের জন্য। এখান থেকে প্রায় পুরো শহরের একটি সুন্দর দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায় এবং ছবি তোলার জন্য এই স্থানটি আইকনিক। এই ব্রিজে পায়ে হেঁটে উঠবার সুব্যবস্থা আছে এবং বলা হয় সন্ধ্যা বা ভোরে ব্রিজ থেকে পুরো শহরের এক অভূতপূর্ব ছবি উপভোগ করা যায়। নানারকম ক্লাইম্বের ব্যবস্থা থাকলেও হারবার ব্রিজে কম পরিশ্রমে উঠবার জন্য এক্সপ্রেস ক্লাইম্ব সবচেয়ে জনপ্রিয়।

 

ডার্লিং হারবার (Darling Harbour):


সিডনির টুরিস্ট হাব হলো এই ডার্লিং হারবার। এখান থেকে নীল সাগর ও শহরের এক ব্যস্ত চিত্র চোখে সারাক্ষণ ভাসবে। সন্ধ্যায় আলোতে আলোতে ভোরে উঠলে হারবারের দৃশ্য পাল্টে যায় অদ্ভুতভাবে। সিফুড রেস্টুরেন্টের এক অফুরন্ত সমাহার দেখতে পাওয়া যায় এখানে।



বন্ডি বিচ (Bondi Beach):


বন্ডাই বিচ সিডনির নামকরা সমুদ্রসৈকত গুলোর মধ্যে একটি। গরমে সূর্যস্নান করতে এখানে বিপুল পরিমাণ মানুষের আগমন হয়। সাদা বালি, শান্ত ঢেউ এবং অসংখ্য ক্যাফে ও রেস্টুরেন্টের জন্য বন্ডাই বিচ তুমুল জনপ্রিয়। বন্ডাই বিচে বছরের সারাসময় ভীড় থাকে তাই এখানে সকাল সকাল যাওয়া ভাল।



রয়াল ন্যাশনাল পার্ক (Royal National Park) :


২৬ কিলোমিটার জুড়ে থাকা এই পার্কটি সিডনির জনপ্রিয় ছুটির দিন কাটাবার স্থানগুলোর মধ্যে একটি। শহরের মাঝে প্রকৃতির এক অসাধারন নিদর্শন এই পার্কে গেলে দেখা যায়। এখানে সময় কাটাতে কোন ফি এর দরকার নেই। সমুদ্রের পাশে এই পার্কটির অবস্থান হওয়ায় এখান থেকে সৈকতের আনন্দ উপভোগ করা যায়। এছাড়া এখানে ট্রেইল ওয়াক, হাইকিং, রক অভজারভেশন সহ নানারকম ব্যবস্থা রয়েছে।



রয়াল বোটানিক গার্ডেন (Royal Botanic Gardens) :


ন্যাশনাল পার্কের পর বিশাল জায়গা নিয়ে আছে রয়াল বোটানিক গার্ডেন। এই বাগানে অস্ট্রেলিয়ার প্রায় সবরকম গাছপালা অতি যত্নে সংরক্ষণ করা হয়। অস্ট্রেলিয়ান বুশ্ল্যান্ড ও সমস্ত বুশ ফুড এর স্বাদ নেবার জন্য এটি একটি আদর্শ জায়গা।



কুইন ভিক্টোরিয়া বিল্ডিং (Queen Victoria Building):


আর্কিটেকচারের প্রতি আগ্রহ থাকলে কুইন ভিক্টোরিয়া বিল্ডিং হলো সিডনির আকর্ষণীয় দালানের একটি। ১৮৯৩ সালে তৈরি এই দালানটি রোমানেস্ক ডিজাইন দ্বারা অনুপ্রাণিত এবং এর নিচের দিকে প্রায় ২০০ টি ব্র্যান্ড সম্বলিত একটি আধুনিক শপিং মল বর্তমানে চালু আছে। দালানের গ্লাস পেইন্টিং এবং মোজাইক এর কাজ দেখতে এবং মূলত কেনাকাটার জন্য টুরিস্ট্রা এখানে প্রতি বছর ছুটে আসে।


ব্লু মাউন্টেন (Blue Mountains) :


শহর বাদ দিয়ে অন্য কিছু দেখতে চাইলে আপনাকে যেতে হবে ব্লু মাউন্টেনে। এখানে দেখা যায় ইউক্যালিপটাসের বন, ছোট ছোট ঝর্না এবং অসংখ্য প্রাকৃতিক কিন্তু অন্যরকম দেখতে পাহাড়। এখানকার থ্রি সিস্টার সাইট, কাটুম্বা গ্রাম, ক্যাবেল রাইড, সিনিক সৌন্দর্য উপভোগের জন্য ট্রেন রাইড সহ আরও অনেক কিছু করার সুযোগ আছে।

কমেন্ট


সাম্প্রতিক পোস্ট